সরকারের প্রনোদনা ও আধুনিক প্রযুক্তি  ব্যবহারে কৃষিতে সফলতা এসেছে-এমপি  সোহাগ

মহিদুল ইসলাম, শরণখোলা

আপডেট : ০৫:০২ পিএম, শনিবার, ৪ মে ২০২৪ | ৯৫

আধুনিক প্রযুক্তি ও যান্ত্রিক পদ্ধতি ব্যবহারের মাধ্যমে দেশের কৃষিখাতে অভাবনীয় সফলতা এসেছে। তাই সরকার ভর্তুকি দিয়ে কৃষকদের বিভিন্ন ধরণের যন্ত্রপাতি, সার, বীজ প্রনোদনার মাধ্যমে প্রদান করছে। এর ফলে দেশ এখন খাদ্যে সয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনে সক্ষম হয়েছে। শনিবার (৪ মে) শরণখোলায় কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে আউশ ধানের বীজ, সার এবং ভর্তুকির মাধ্যমে কম্বাইন্ড হারভেস্টার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বাগেরহাট-৪ (শরণখোলা-মোরেলগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ একথা বলেন।


এমপি বদিউজ্জামান সোহাগ আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে দারিদ্রের হার অনেকটা কমে এসেছে। যে কারণে ভিজিডি, ভিজিএফ কার্ডধারীর সংখ্যাও কমে গেছে। শরণখোলায় আগে যেখানে সুবিধাভোগী ছিল ছয় হাজার, সেই সংখ্যা এখন দুই হাজারে নেমে এসেছে। এই চিত্র সারা দেশেই। সরকারের প্রনোদনায় কৃষিতে ব্যাপক উন্নয়নের ফলে এটি সম্ভব হয়েছে।


উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এস এম তারেক সুলতানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিনামূল্যে সার-বীজ বিতরণ অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতা এম এ রশিদ আকন, উপজেলা চেয়ারম্যান মো. রায়হান উদ্দিন শান্ত, ভাইস চেয়ারম্যান হাছানুজ্জামান পারভেজ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রাহিমা আক্তার হাসি, কৃষি কর্মকর্তা দেবব্রত সরকার, খোন্তাকাটা ইউপির চেয়ারম্যান জাকির হোসেন খান মহিউদ্দিন, সাউথখালী ইউপির চেয়ারম্যান ইমরান হোসেন রাজিব প্রমূখ।


উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা দেবব্রত সরকার জানান, ২০২৩-২৪ অর্থবছরে খরিফ-১/২০২৪-২৫ মৌসুমে উফশী আউশ আবাদ ও উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে ৮০০ চাষিকে বিনামূল্যে ৫ কেজি বীজ ধান, ১০ কেজি ডিএপি ও ১০ কেজি এমওপি সার বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া ৩০ লাখ টাকা মূল্যের দুটি কম্বাইন্ড হারভেস্টার ৭০ভাগ ভর্তুকির মাধ্যমে দেওয়া হয়েছে। এই কম্বাইন্ড হারভেস্টার দিয়ে একই সাথে ধান কাটা, মাড়াই ও ঝাড়াই করা সম্ভব হবে। এই যন্ত্রের ব্যবহার করে এলাকার চাষিদের আর্থিক ও সময়ের অনেকটা সাশ্রয় হবে। এবছর শরণখোলা উপজেলার চারটি ইউনিয়নে ১ হাজার ২০০ হেক্টর জমিতে আউশ ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে বলে কৃষি কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত