সুন্দরবনে খাল থেকে

বাঘের অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার

আপডেট : ১২:০৮ এএম, বুধবার, ১ মে ২০২৪ | ১০২

বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের আন্ধরিয়া খাল থেকে একটি বাঘের মরদেহ উদ্ধার করেছে বন বিভাগ। মঙ্গলবার বিকাল চারটার দিকে সুন্দরবনের জোংড়া টহলফাঁড়ির সদস্যরা অর্ধগলিত বাঘের মরদেহ দেখতে পেয়ে চাঁদপাই রেঞ্জের কর্মকর্তাদের খবর দেয়।

খবর পেয়ে চাঁদপাই রেঞ্জের কর্মকর্তা এসিএফ রানা দেব ও জোংড়া টহলফাঁড়ির সদস্যরা বাঘের মরদেগটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য করমজল বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রে পাঠায়।


প্রাপ্ত বয়স্ক এই বাঘটি বার্ধক্যজনিত কারণে, দাবদাহে বা চোরা শিকারিদের হাতে মারা পড়েছে কি না সে বিষয়টি এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। বাঘটির মৃত্যুর সঠিক কারণ জানতে বুধবার সকালে করমজল বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রে প্রাণী সম্পদ চিকিৎসকদের দিয়ে ময়না তদন্ত করা হবে বলে নিশ্চিত করেছে সুন্দরবন বিভাগ।

চলতি বছরের ১২ ফেব্রুয়ারি পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের শরণখোলা রেঞ্জের কচিখালী এলাকার একটি খাল থেকে ভাসমান অবস্থায় ১৫ বছর বয়সের একটি পুরুষ বাঘের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

এর আগে ২০২২ সালের ২৮ জানুয়ারি বিকালে পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের দুবলার চর সংলগ্ন রূপার খাল থেকে একটি বাঘের মরদেহ ও ২০২১ সালের ১৯ মার্চ শরণখোলা রেঞ্জের ভোলানদীর ধুনছেবাড়িয়া চর থেকে আরও একটি বাঘের মরদেহ উদ্ধার করেছিল বন বিভাগ। ময়না তদন্তের পর উদ্ধার করা এসব মৃত বাঘের চামড়া ও অঙ্গপ্রত্যঙ্গ সংরক্ষণের পর সুন্দরবনের অভ্যন্তরেই মাটি চাপা দেওয়া হয়। তবে, এসব মৃত বাঘের ময়না তদন্ত রিপোর্ট বন বিভাগ প্রকাশ করা থেকে বিরত থাকে।

সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের করমজল বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাওলাদার আজাদ কবির জানান, উদ্ধারকৃত মৃত বাঘটি প্রায় এক সপ্তাহ আগে মারা গেছে। ইতিমধ্যে বাঘটির শরীরে পচন ধরেছে, এ কারণে বাঘটি পুরুষ না নারী সেটা শনাক্ত করতে সমস্যা হচ্ছে। তবে আমরা ধারণা করছি বাঘটি পুরুষ। কী কারণে বাঘটি মারা গেছে তা ময়না তদন্তের রিপোর্টের পর জানা যাবে। বুধবার সকালে করমজল বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রে প্রাণী সম্পদ চিকিৎসকদের দিয়ে ময়না তদন্ত করা হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত