বঙ্গোপসাগরে দু’দল জেলের মধ্যে সংঘর্ষে  আহত ৬, বনরক্ষীদের ফাঁকা গুলি 

মহিদুল ইসলাম, শরণখোলা

আপডেট : ০৭:৪৮ পিএম, বুধবার, ২৭ মার্চ ২০২৪ | ১২৩

বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরাকে কেন্দ্র পাথরঘাটা ও শরণখোলার দুই জেলে গ্রুপের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ হয়েছে। এতে শরণখোলার পাঁচ জেলে এবং পাথরঘাটার এক জেলে আহত হয়েছেন। বুধবার (২৭মার্চ) সকালে পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের কটকা ফরেস্ট অফিসসংলগ্ন সাগরে এই ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে বনরক্ষীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ফাঁকা গুলি ছুড়ে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণ করেন।
আহতরা হলেন বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলার উত্তর রাজাপুর গ্রামের মৎস্য ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলামের জেলে দেলায়ার, কাওসার, নাজমুল, আসাদ ও মাসুম। এদেরকে বিকেলে শরণখোলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্রতিপক্ষের আহত জেলের নাম বেল্লাল হোসেন। তিনি পাথরঘাটার পদ্মস্লুইস এলাকার মৎস্য ব্যবসায়ী রফিক খানের
জেলেদের মহাজন রফিকুল ইসলাম বিকেল ৫টার দিকে জানান, সকাল ৬টার দিকে কটকা অফিসসংলগ্ন বঙ্গোপসাগরের ফুসফুসের চর এলাকায় তার জেলেরা জাল ফেলেন। এসময় পাথরঘাটা উপজেলার পদ্মাস্লুইস এলাকার হালিম খানের ছেলে রফিকুল খানের নেতৃত্বে ২০-২৫ জন জেলে তিনটি ট্রলারে এসে তাদের মাছ ধরতে বাধা দেন এবং জাল তুলে নিতে বলেন। জেলেরা বাধা উপক্ষো করে মাছ ধরা বন্ধ না করায় তারা মারধর শুরু করেন। একপর্যায় তারা বেপরোয়াভাবে জেলেদের মারতে থাকলে নিকটবর্তী কটকা ফরেস্ট অফিসের বনরক্ষীরা গিয়ে ফাঁকা গুলি ছুড়ে ঘটনা নিয়ন্ত্রণ করেন। তাদের হামলায় পাঁচ জেলে গুরুতর আহত হয়েছেন। এঘটনায় মামলা করা হবে বলে মৎস্য ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন।
পাথরঘাটার পদ্মস্লুইস এলাকার মৎস্য ব্যবাসয়ী রফিকুল খান মুঠোফোনে জানান, শরণখোলার রফিকের জেলেরা তার জেলের ওপর হামলা চালিয়েছে। এতে বেল্লাল নামে তার এক জেলের হাত ভেঙে গেছে। তাকে পাথরঘাটা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।


পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের সহকারী বনসংরক্ষক (এসিএফ) শেখ মাহাবুব হাসান বলেন, বঙ্গোপসাগরের ফুসফুসের চর এলাকায় এঘটনা ঘটেছে। বনরক্ষীরা দ্রুত গিয়ে ফাঁকা গুলি ছুড়লে হামলকারীরা পালিয়ে যায়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত