রূপপুরের ৫৮ তম চালানের পণ্য নিয়ে মোংলা বন্দরে নোঙ্গর করেছে বিদেশী জাহাজ “এমভি এস টি সোফিয়া”

মাসুদ রানা, মোংলা

আপডেট : ১০:৩৮ পিএম, রোববার, ৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৮৮

রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ৫৮তম চালানের মেশিনারিজ মালামাল নিয়ে মোংলা বন্দরে নঙ্গর করেছে বিদেশী বানিজ্যিক জাহাজ “এমভি এসটি সোফিয়া”। লাইব্রেরিয়ান পতাকাবাহী এ জাহাজটি শনিবার রাতে মোংলা বন্দরের ৫ নম্বর জেটিতে পন্য খালাসের জন্য এসে ভিড়েছে। রাত থেকে শুরু হওয়া পন্য খালাসের কাজ চলছে বিরতিহীন ভাবে।
জাহাজটির স্থানীয় শিপিং এজেন্ট “মেসার্স ইন্টার পোর্ট লিঃ” কর্তৃপ জানায়, গত ৫ জানুয়ারী রাশিয়ার সেন্টপিটার বর্গ বন্দর থেকে পন্য নিয়ে মোংলা বন্দরের উদ্দোশ্যে ছেড়ে আসে লাইব্রেরিয়ান পতাকাবাহী “এমভি এসটি সোফিয়া”। এবারের ৫৮ তম চালানে ২ হাজার ৪৭৮টি প্যাকেজে ১ হাজার ৬৮১. ৬১৫ মেট্রিক টন রাশিয়ান বিভিন্ন মেশিনারিজ পন্য রয়েছে।
জাহাজটি রুপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের রুশ পন্য বোঝাই করে ৪টি সাগর পথ পাড়ি দিয়ে সরাসরি মোংলা বন্দরে পৌছাতে ৩০ দিন সময় লেগেছে বলে জানায় আমদানীকারক।
পন্য বোঝাই জাহাজটি বন্দর জেটিতে নঙ্গরের পর শনিবার রাতের পালা থেকে পন্য খালাসের কাজ শুরু করে মেসার্স অভিরত এজেন্সি লিঃ প্রতিনিধিরা।
রুপপুরের মুল্যবান এ সকল পন্য খালাস করতে সময় লাগবে মাত্র ৩/৪ দিন বলে জানায় শিপিং এজেন্ট কর্তৃপক্ষ। খালাসকৃত মেশিনারিজ পণ্য বন্দর জেটির পৃথক সেডে মজুদ করে রাখার পর সড়ক পথে নেয়া হবে নতুন নির্মানাধিন রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ডিপোতে।
অবিরত এজেন্সি লি: এর জেনারেল ম্যানেজার শরিফুল ইসলাম মিলন বলেন, দেশের বড় বড় মেঘা প্রকল্পের অধিকাংশ মালামাল মোংলা বন্দর দিয়ে খালাস হয়েছে। এখানে জাহাজ জট বা কোন প্রতিবন্ধকতা না থাকায় পন্য খালাস করে তা দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে নিয়ে যাওয়া যায়৷
এছাড়া পদ্মাসেতু চালু হওয়ায় ব্যাবসায়ীদের মোংলা বন্দর ব্যাবহার করার আগ্রহ আরে বেড়ে গেছে৷ আমাদের কোম্পানীর সকল জাহাজ মোংলা বন্দর দিয়ে আমদানী-রপ্তানী কর আসছি। আগামীতে যতগুলো জাহাজ আসবে সেগুলোও এ বন্দরে কারাস করা হবে।
এর আগে গত ৫ জানুয়ারী ৫৭ তম চালানের ৭৪৩ প্যাকেজে ১৬২৭ মেট্রিক টন মেশিনারিজ যন্ত্রাংশ খালাস করে মোংলা বন্দর ত্যাগ করেছিল "এমভি আনকা সান” নামের বিদেশী জাহাজ।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত