শিক্ষকদের মানববন্ধন ॥ ১৫ স্কুলের নিয়োগ স্থগিত

চিতলমারীতে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী নিয়োগে চরম হট্টোগোল

স্টাফ রিপোর্টার

আপডেট : ০৯:৫৪ পিএম, বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৩০৭৫

বাগেরহাটের চিতলমারীতে ১৫ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী নিয়োগ কার্যক্রম স্থগিত করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নিয়োগ বোর্ডের সভাপতি মোঃ আবুসাঈদ। নিয়োগ বোর্ডে অনাকাক্সিক্ষত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করতে তাৎক্ষণিকভাবে এ নিয়োগ প্রক্রিয়া স্থগিত করা হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, উপজেলার ২২ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে ১৫ টি বিদ্যালয়ের দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী নিয়োগ কার্যক্রম ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়। গত বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭ দিকে নিয়োগ কার্যক্রমে অনাকাক্সক্ষাতি ঘটনা এড়াতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী নিয়োগ বোর্ডের সভাপতি মোঃ আবু সাঈদ নিয়োগ কার্যক্রম স্থগিত ঘোষণা করেন।

নিয়োগ বোর্ডের সদস্য (উপজেলা চেয়ারম্যানের প্রতিনিধি) এবাদুল হাওলাদার বাগেরহাট টুয়েন্টি ফোরকে বলেন, অর্থের বিনিময়ে অযোগ্যদের নিয়োগ দেওয়ার চক্রান্তকারীদের বিরুদ্ধে তিনি জোর প্রতিবাদ জানান। এ সময় বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে ইউএনও নিয়োগ কার্যক্রম স্থগিত করেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও এমপি শেখ হেলাল উদ্দীন এর প্রতিনিধি পীযূষ কান্তি রায় বাগেরহাট টুয়েন্টি ফোরকে জানান, নিয়োগ বোর্ডের সভাপতিসহ অধিকাংশ সদস্যদের সিদ্ধান্তকে অমান্য করে এককভাবে একজন সদস্য শিষ্টাচার বর্হিভূত ভাবে তার মনোনিত প্রার্থীদের নিয়োগ দেওয়ার অপচেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়। এ জন্য নিয়োগের প্রথম দিন মঙ্গলবার ও দ্বিতীয় দিন বুধবার একই ভাবে তিনি নিয়োগ বোর্ডে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করেন। এ সময় অনাকাঙ্খিত ঘটনা এড়াতে ইউএনও নিয়োগ প্রক্রিয়া স্থগিত করেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আবু সাঈদ বাগেরহাট টুয়েন্টি ফোরকে জানান, নিয়োগের ব্যাপারে কোন অবৈধ সুপারিশ ও অর্থ লেনদেনের সুযোগ নেই। মাননীয় সাংসদের নির্দেশ ক্রমে যোগ্য ও মেধাবীদের নিয়োগ দেওয়া হবে। তিনি আরো জানান, বিশৃঙ্খলা এড়াতে তাৎক্ষনিক ভাবে নিয়োগ প্রক্রিয়া স্থগিত করা হয়। নিয়োগের ব্যাপারে পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

অপরদিকে, শিক্ষক লাঞ্চনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার বিকালে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা চিতলমারী উপজেলা প্রশাসন ভবনের সামনে তাৎক্ষনিকভাবে মানববন্ধন করেছেন। বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে ওই ঘটনা ঘটে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। লাঞ্চনার শিকার স্কুল শিক্ষক অপু রানী রায় (৩৮) এ ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত